লুটপাটের কারনে দেশে দেউলিয়া হয়ে যাচ্ছে : কাইয়ুম চৌধুরী

Alternative Text
,
প্রকাশিত : ১১ জুন, ২০২২     আপডেট : ৩ সপ্তাহ আগে

সিলেটএক্সপ্রেস–   সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী বলেছেন, সিলেট আজকে বন্যা কবলিত। বন্যার্থদের পুনর্বাসনের জন্য আমরা দাবী জানিয়ে ছিলাম। নিম্নবৃত্ত ও মধ্যবৃত্ত যারা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন তাদেরকে অন্তত ৬ মাস খাদ্য সহায়তা দেয়ার দাবী জানিয়ে ছিলাম। কিন্তু বন্যার্থদের দিকে তাদের দৃষ্টি নেই। গত বাজেটের মত এবারেও তারা বিশাল ঘাটতি নিয়ে বাজেট প্রণয়ন করেছেন। যাতে লক্ষ লক্ষ কোটি টাকা ঘাটতি রয়েছে। এখন কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে অর্থ প্রাচার হচ্ছে। পদ্মা ব্রীজ নির্মাণে অর্থ ব্যয়ের লুটপাটে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে রক্তক্ষরণ হচ্ছে আগামী ৬ মাসে দেশের রিজার্ভ শূণ্য হয়ে যাবে। এখন বাংলাদেশের অনেক ব্যাংকের এলসি বিদেশে গ্রহন করছে না। তার কারন হচ্ছে বিদেশীরা জানে এদেশের ব্যংকিং ব্যবস্থা যেভাবে লুটপাট হয়েছে অচিরেই শ্রীলংকার মত অবস্থা হবে। আগামী বছর থেকে চায়না এবং রাশিয়ার ঋণ পরিশোধ করতে গিয়ে বাংলাদেশ সর্বস্ব হারাবে। আর তার জন্য দায়ি হচ্ছে এই লুটেরা সরকার। এই লুটপাটের ঘাটতি পুরণ করতে গিয়েই নিশিরাতের সরকার তেল, গ্যাস, বিদ্যুৎ সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি করেছে। বিএনপি জনগনের ভালোবাসার দল তাই তারা জনগনের কথা বলে। এজন্যই জনগনের এই সমস্যার কথা নিয়েই আমরা আন্দোলন করছি। বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য আমরা মিছিল করছিনা, মিছিল করছি দেশের মানুষের জন্য।
শনিবার বিকেলে তেল-গ্যাস সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে এবং দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখার দাবীতে সিলেট রেজিষ্ট্রারী মাঠ থেকে বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্টিত সভায় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন জেলা ওলামা দলের আহবায়ক মাওলানা নুরুল হক।
তিনি আরো বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে সুচিকিৎসা নিতে আওয়ামী লীগ সরকার বাঁধা দিচ্ছে। সাবেক তিনবারের এই প্রধানমন্ত্রীর শারিরিক অবস্থা খুবই খারাপ। গতকাল গভীর রাতে নেত্রীর শারিরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে হাসপাতালের সিসিইউতে ভর্তি করা হয়েছে। তবুও তাকে বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা নিতে দিচ্ছেনা। দেশনেত্রীর কিছু হলে এই সরকার পালাবার রাস্তাও খোঁজে পাবে না।

সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট এরমান আহমদ চৌধুরী বলেন, সারা বাংলাদেশের মানুষ আজ দিশেহারা। আওয়ামী লীগ সরকার তেলের দাম বাড়িয়েছে, গ্যাসের দাম বাড়িয়েছে বার বার। এই সরকার দেশের জনগের স্বার্থ বিরুধী সরকার। তাই তাদের আর ক্ষমতায় থাকার অধিকার নাই। তারা আড়াই লক্ষ কোটি টাকা ঘাটতি রেখে লুটপাটের বাজের ঘোষনা করেছে। এই টাকা তারা লুটপাট করে দেশের বাহিরে নিয়ে যাবে। দেশের জনগন এই সরকারের বিরুদ্ধে জেগে উঠেছে। ইনশাআল্লাহ এই সরকারের পতন হবে।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- সিলেট জেলা বিএনপি নেতা এ্যাডভোকেট আশিক উদ্দিন, মামুনুর রশীদ মামুন, শামীম আহমদ, ইসতিয়াক আহমদ সিদ্দিকী, সিদ্দিকুর রহমান পাপলু, এ্যডভোকেট হাসান মাহমুদ পাঠোয়ারী রিপন প্রমুখ।
বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট জেলা বিএনপি নেতা আশিক উদ্দিন চৌধুরী, মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সল, জেলা বিএনপি নেতা ফখরুল ইসলাম ফারুক, মাহবুবুল হক চৌধুরী, কামরুল হাসান শাহীন, একেএম তারেক কালাম। দক্ষিণ সুরমা উপজেলা বিএনপির সভাপতি হাজী মো. সাহাব উদ্দিন, ওসমানীনগর উপজেলা বিএনপির সভাপতি এসটিএম ফখর উদ্দিন, গোয়াইনঘাট উপজেলা বিএনপির সভাপতি মাহবুবুল আলম, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি হাজী মো. শাহাব উদ্দিন, গোলাপগঞ্জ পৌর বিএনপির সভাপতি মশিকুর রহমান মহি, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি ওয়াহিদুজ্জামান সুফি। দক্ষিণ সুরমা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কোহিনুর আহমদ, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান আজিজ, গোয়াইনঘাট উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর। সিলেট জেলা বিএনপি নেতা- সুরমান আলী, তাজরুল ইসলাম তাজুল, কামাল হাসান জুয়েল, এ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান, আক্তার আহমদ, এ্যাডভোকেট আবু তাহের, এ্যাডভোকেট সাঈদ আহমদ, মাসুম রাজ্জাক রুবেল, মাহবুর রহমান ফযসল, মতিউল বারী খুরশেদ, রফিকুল ইসলাম শাহপরান, জসিম উদ্দিন, শাহ আলম স্বপন, আফম কামাল, শাকিল মোর্শেদ, লোকমান আহমদ, আব্দুল জলিল, আব্দুর রহমান, মনিরুল ইসলাম তুরন, দিদার ইবনে লষ্কর, বুরহান উদ্দিন খন্দকার, নুরুল মোত্তাকিম বাদশা, জাহেদ আহমদ, আকবর আলী, জয়নাল আবেদীন, আল মামুন, বাদশা মিয়া, শেখ আলাউদ্দিন রিপন, আব্দুল মুনিম চেয়ারম্যান, সুমেল আহমদ চৌধুরী। সিলেট জেলা যুবদলের ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক এ্যাডভোকেট মুমিনুল ইসলাম মুমিন। মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক আজিজুল হোসেন আজিজ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব দেওয়ান জাকির হোসেন খান। জেলা শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, মহানগর শ্রমিক দলের সভাপতি আব্দুল আহাদ, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গির হোসেন জীবন। জেলা মহিলা দলের সভাপতি সালেহা কবির শেপী ও সাধারণ সম্পাদক ফাহিমা আহাদ কুমকুম। জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আলতাফ হোসেন সুমন, সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দিনার, মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বী আহসান। জেলা জাসাসের সদস্য সচিব রায়হান হোসেন খান, মহানগর জাসাসের সদস্য সচিব রাসেল আহমদ। জেলা মৎসজীবী দলের সদস্য সচিব ইসলাম উদ্দিন প্রমূখ।
এদিকে, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় বাদ আছর হযরত শাহজালাল (র.) এর দরগাহ প্রাঙ্গনে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে সিলেট জেলা বিএনপি। এতে জেলা বিএনপি, বিভিন্ন উপজেলা বিএনপি, পৌর বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 


আরও পড়ুন