সিকৃবিতে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালিত

,
প্রকাশিত : ০৭ মার্চ, ২০২২     আপডেট : ৪ মাস আগে

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালন করা হয়েছে। সোমবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করে ক্যাম্পাসে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয় বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ ও প্রকাশনা দপ্তর। সকাল সাড়ে ন’টায় জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটির উদ্যোগে একটি র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালিটির নেতৃত্ব দিয়েছেন ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ মতিয়ার রহমান হাওলাদার। র‌্যালিটি ক্যাম্পাসের মূল সড়ক প্রদক্ষিণ করে বঙ্গবন্ধু ম্যুরালের সামনে এসে শেষ হয়। র‌্যালিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. এম. এম. মাহবুব আলমের সঞ্চালনায় পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটি, শিক্ষক সমিতি, অফিসার পরিষদ, কর্মচারী পরিষদ, গণতান্ত্রিক শিক্ষক পরিষদ, গণতান্ত্রিক অফিসার পরিষদ, প্রক্টর কার্যালয়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সিকৃবি শাখা, কৃষ্ণচূড়া সাংস্কৃতিক সংঘ, সিকৃবি সাংবাদিক সমিতি, ওয়ান বাংলাদেশ, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান (আমুস) ইত্যাদি সংগঠন। ঐতিহাসিক ৭ মার্চ এর গুরুত্ব ও তাৎপর্য নিয়ে বঙ্গবন্ধু ম্যুরালের সামনেই বক্তব্য দিয়েছেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ মতিয়ার রহমান হাওলাদার। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু মাটি ও মানুষের নেতা। তাই, তার ভাষণেও মাটি ও মানুষের ভাষা লক্ষ করা যায়। প্রমিত বাংলায় প্রদত্ত সে ভাষণে তিনি তুলে ধরেন শোষণ-বঞ্চনার ইতিহাস, সমসাময়িক হত্যাকান্ডের কথা, রাজনৈতিক দোলাচল এবং বাংলার মানুষের স্বাধীনতা লাভের বাসনা। উল্লেখ্য ৭ মার্চে রেসকোর্সের ভাষণের পরে নিউইয়র্কের দ্য নিউজউইক ম্যাগাজিন ৫ এপ্রিলে প্রকাশিত সংখ্যায় বঙ্গবন্ধুকে ‘পোয়েট অব পলিটিক্স’ বা ‘রাজনীতির কবি’ বলে আখ্যায়িত করে।


আরও পড়ুন

বিনা পয়সায় চামড়া প্রক্রিয়াজাত করে দিচ্ছে সিসিক

         প্রতি ঈদুল আজহায় কোরবানির পশুর...

যেহিন আহমদ অনেক কিছু করেছেন দেশ জাতি ও সমাজের জন্য

         জালালাবাদ এসোসিয়েশন ঢাকার সভাপতি, সাবেক...